ডেইলি তালাশ
ডেইলি তালাশ এ আপনাদের স্বাগতম। সময়ের সাথে সবার আগে বস্তুনিষ্ঠ সত্য সংবাদ পেতে আমাদের ওয়েভ-সাইট সাবস্ক্রাইব করে রাখুন।
শিরোনামঃ
বসুন্ধরা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড লাভ করেছেন গোপালগঞ্জের প্রবীন সাংবাদিক রবীন্দ্রনাথ অধিকারী গোপালগঞ্জে স্বপ্ন ফেরিওয়ালা সংগঠনের বিনা মূল্যে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান আমার স্বামীকে বাঁচান টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শ্রদ্ধা বরগুনায় জেলা বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত বঙ্গোপসাগর উত্তাল ৫৮ জেলে উদ্ধার নিখোজ- ১৮ পাঁচবিবিতে শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রকে মারধরের>প্রতিবাদ ও বিচারের দাবীতে মানববন্ধন বিয়ের প্রলোভনে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ, যুবক গ্রেপ্তার পাঁচবিবিতে ৫০০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ২ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার পাঁচবিবিতে সরকারি ঔষধ বিক্রির দায়ে ২টি ফার্মাসির অর্থদণ্ড
মেয়র প্রার্থীকে অবৈধ ঘোষণা, প্রার্থী- সমর্থন কারির সংবাদ সম্মেলণ

মেয়র প্রার্থীকে অবৈধ ঘোষণা, প্রার্থী- সমর্থন কারির সংবাদ সম্মেলণ

 গোলাপ হোসেন, জয়পুরহাট প্রতিনিধি : ০১ জুলাই/২২ জয়পুরহাটের পাঁচবিবি পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীদের মনোনয়পত্র যাচাই-বাচাইয়ের সময় স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সাবেকুন নাহার শিখার প্রার্থীতা অবৈধ ঘোষণা করা হয়। কারন হিসেবে  সমর্থকের স্বাক্ষর ভুয়া উল্লেখ করে মনোনয়ন পত্র অবৈধ ঘোষণা করেন উপজেলা নির্বাচন কমিশন । আর এই ঘটনার পর থেকে মেয়র প্রার্থী ও সমর্থনকারি পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছেন।
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ শহিদুল ইসলাম বলেন, প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই বাচাইয়ের সময় ওই নারীর কাছে জানতে চাইলে তিঁনি স্বাক্ষর করেননি বলে অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে জানান। পরে তাঁর প্রার্থীতা অবৈধ ঘোষণা করা হয়।
বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) মেয়র প্রার্থী সাবেকুন নাহার শিখার প্রার্থীতা অবৈধ ঘোষণা করেন নির্বাচন কমিশন। 
এদিকে প্রার্থীতা অবৈধ ঘোষণার পরে গতকাল (বৃহস্পতিবার)  সন্ধ্যার দিকে পাঁচবিবির দানেজপুর এলাকায় নিজ কার্যালয়ে প্রার্থী সাবেকুন নাহার শিখা তাঁর সমর্থক নার্গিস বেগমের স্বাক্ষর বৈধ্য দাবী করে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।
সংবাদ সম্মেলনে মেয়র প্রার্থী সাবেকুন নাহার শিখা সাংবাদিকদের বলেন, নির্বাচনে অংশ গ্রহনের জন্য প্রার্থীদের কাগজপত্র যাচাই বাছাইয়ের সময় আমার ১শ’ জন সাধারণ ভোটারের সমর্থন সম্বলিত স্বাক্ষরের তালিকায় দুই সমর্থকের স্বাক্ষর ভূয়া উল্লেখ করে আমার মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়।
তিঁনি বলেন, গতকাল বেলা ১২টার দিকে আমার সমর্থক নার্গিস বেগমকে নিয়ে উপজেলার আটাপুর ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে আমি অবস্থান করছিলাম। এই সময় প্রতিপক্ষ মেয়র প্রার্থীর ৬-৭ জন লোক নার্গিসকে ভয়ভীতি দেখিয়ে মোটরসাইকেলে যোগে তুলে নিয়ে যায়। এসয়ম আমাকে ও আটাপুর ইউপি চেয়ারম্যানকে গুলি করার হুমকিও দেয়। এ বিষয়ে আমি থানায় একটি অভিযোগ করেছি। 
তিনি আরো বলেন, আমার সমর্থক নার্গিসকে বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে উল্টো তাকে দিয়ে আমার বিরুদ্ধে একটি অপহরণ মামলা করে আমাকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখার পাঁয়তারা করা হচ্ছে। 
আটাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আ স ম আরেফীন চৌধুরী বলেন, আমি ও প্রার্থী সাবেকুন নাহার শিখাসহ কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে কথা বলছিলাম। হঠাৎ প্রতিপক্ষের লোকজন এসে নার্গিস বেগমকে তুলে নিয়ে যায় এবং আমিসহ শিখাকে প্রকাশ্যে গুলি করার হুমকিও দিয়ে যায়।
এদিকে শুক্রবার বিকেলে পাঁচবিবি পৌর শহরের দমদমা এলাকার নিজ বাসভবনে নার্গিস বেগম সাংবাদিকদের ডেকে এক সংবাদ সম্মেলন করেছেন। 
সংবাদ সম্মলনে লিখিত বক্তব্য পাঠকালে তিঁনি বলেন, পাঁচবিবি পৌরসভা নির্বাচনে আমার স্বাক্ষর জাল করে মনোনয়ন পত্র জমা দেন সাবেকুন নাহার শিখা। মেয়র প্রার্থী সাবেকুন তার তালিকায় আমার স্বাক্ষর দেখিয়েছেন কিন্তু আমি কোন স্বাক্ষর দেয়নি।  তাছাড়া অপহরণের ঘটনা সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন। নার্গিস বেগম আরো বলেন, ওই মহিলা যে অন্যের স্বাক্ষর জাল করে নির্বাচন করতে চায়, সে আমার পরিবারের নামে মিথ্যা অভিযোগ করায় আমি তার সুষ্টু বিচার চাই।
পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব বলেন, এঘটনায় উভয় পক্ষ থানায় লিখত অভিযোগ করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।###

পোস্টটি শেয়ার কারুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিজ্ঞাপনঃ

রাজনীতি

অপরাধ ও দুর্নীতি

© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed By Mak Institute of Design |