ডেইলি তালাশ
ডেইলি তালাশ এ আপনাদের স্বাগতম। সময়ের সাথে সবার আগে বস্তুনিষ্ঠ সত্য সংবাদ পেতে আমাদের ওয়েভ-সাইট সাবস্ক্রাইব করে রাখুন।
শিরোনামঃ
ময়মনসিংহে জেলা ও মহানগর আ.লীগের সম্মেলন শুরু কলাপাড়ায় সম্ভাবনাময় পর্যটন স্পট চর হেয়ার ও সোনারচর ঠাকুরগাঁও জগদল সীমান্তে দুই বাংলার হাজারো মানুষের দিনব্যাপী মিলন মেলা কোর্ট এর আদেশ লঙ্গন করতে গেলে আ’লীগ রাস্তায় দারাবে !!গোলাপ এমপি র‌্যাব-৩ এর অভিযানে সৌদি আরবে মানব পাচারকারী চক্রের মূলহোতা গ্রেফতার শিশুদের পাইলসের লক্ষণ, অস্ত্রোপচারে ঝুঁকি কতটা? হেরেও নকআউটে স্পেন, চারবারের চ্যাম্পিয়ন জার্মানির বিদায় !!স্মরণীয় জয়ে গ্রুপসেরা জাপান ফরিদপুরে ককটেল বিস্ফোরণ, বিএনপির ৮ নেতাকর্মী গ্রেপ্তার বাঙালির মাছ ভাজি’ নিয়ে বিতর্ক, ক্ষমা চাইলেন পরেশ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সম্মেলন কাল, নেতৃত্ব যাচ্ছে ওবায়দুল কাদের হাতে?
পাঁচবিবিতে জোরপূর্বক বাড়ী নির্মাণে বাধা দেওয়ায়>মারপিট ও প্রাণ নাশের অভিযোগ

পাঁচবিবিতে জোরপূর্বক বাড়ী নির্মাণে বাধা দেওয়ায়>মারপিট ও প্রাণ নাশের অভিযোগ

মোঃ ইদ্রিস আলী, পাঁচবিবি, জয়পুরহাট >>> জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে বিবাদমানন জমিতে জোরপূর্বক ইটের বাড়ী নির্মাণে বাধা দেওয়াই জমির মালিককে মারপিট ও প্রাণ নাশের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী আকবর আলী পাঁচবিবি থানা ও উপজেলা নির্বাহী বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনাটি উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের বেলখুর গ্রামে ঘটে।


লিখিত অভিযোগ সূত্রে ও সরেজমিনে গেলে এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার বেলখুর মৌজার সিএস খতিয়ান নং- ৬১ ও এম আর নং ১৭৬ এর ২৫ শতক সম্পত্তিতে একই গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে সামছুদ্দিন (৫৫), সাখাওয়াত হোসেন (৪৮), ছামসদ্দিনের ছেলে আজিজুল(৩৫) ও নাজির উদ্দিন জোর পূর্বক ভাবে ইটের ঘরবাড়ী নির্মাণ কাজ করলে আকবরের স্ত্রী মিনারা খাতুন তাদের কে বাধা প্রদান করেন। এসময় প্রতিপক্ষরা মারপিট সহ তাদের প্রাণ নাশের হুমকি দেয় ।
উল্লেখিত জমির মালিকানা বিষয়ে জেলা যুগ্ম জেলা জজ ২য় আদালতে আকবর আলী বাদী হয়ে গত ২৪/০৮/২০২১ই তারিখে একটি মামলা দায়ের করেন। যার নং ২৭১/২১ ।


মামলা সূত্রে জানা যায়, বিবাদমান সম্পত্তিটি বিগত ২৩/০৬/১৯৭৩ সালে ৮৭৮৪ নং দলিল মূলে বুলিমন বিবির ১.৫০ শতক অংশ সম্পত্তি মৃত ছিফাতুল্লার ছেলে মৃত পিয়ার মাহমুদ ও হাতেম আলী এবং হাজী আজিমুদ্দিন ও মহাতাব আলীর নিকট বিক্রয় করেন। একই বছর ঐ দলিলের ৪মাস পর ১১/১০/১৯৭৩ইং সালে একই সম্পত্তিটি বুলিমন বিবি পুণরায় একই গ্রামের মৃত কিফাতুল্লহ মন্ডলের ছেলে আব্দুল গফুর ও আবুল হোসেন মন্ডলের নিকট ২২২১৯ নং দলিল মূলে বিক্রয় করেন। যা আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। বেলখুর গ্রামের দারাজ উদ্দিন বলেন, ২২২১৯ নং দলিলটি পরে করা তাই আইনে টিকবে না । জমি ভোগদখলকারী সামছুদ্দিন মন্ডল বলেন, দীর্ঘ ৫০বছর ধরে আমরা জমিটি ভোগ দখল করে আসছি। আইনে পেলে আমরা ছেড়ে দিতে বাধ্য। ভুক্তভোগী আকবর আলী বলেন, আমার বাবা ও হাতেম আলী, হাজী আজিমুদ্দিন এবং মহাতাব আলী একই দলিলে জমি ক্রয় করেন। অন্য ক্রেতারা বিবাদীদের আত্মীয়তার সূত্রে যোগসাজসে রেকর্ডের সময় আমাদের ৮৭৮৪ নং দলিলটি গোপন রেখে ২২২১৯ নং দলিল দিয়ে নিজ নামে ৯০ এ আর এস রেকর্ড করে নেন।

এ বিষয়ে অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা এএসআই তারা মিয়া বলেন, বিষয়টি আদালতে বিচারধীন। আদালতই সিদ্ধান্ত দিবে।তিনি সকলকে সংযত থাকার পরামর্শ দেন।

পোস্টটি শেয়ার কারুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিজ্ঞাপনঃ

রাজনীতি

অপরাধ ও দুর্নীতি

© ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed By Mak Institute of Design |